সোমবার, নভেম্বর ২৮, ২০২২

যথাযোগ্য মর্যাদায় পিরোজপুরে জাতীয় শোক দিবস উদযাপন

[print_link]

জালিস মাহমুদ, পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

পিরোজপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৭ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়েছে।

দিবসটি পালন উপলক্ষে ১৫ অগাস্ট (সোমবার) সকালে পিরোজপুর আ’লীগের কার্যালয়ের সামনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতিকৃতিতে পুষ্প মাল্য অর্পণ করেন জেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দ।

সকাল ১০ টায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শহরের বঙ্গবন্ধু চত্ত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান, জেলা আ’লীগের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ এ কে এম এ আউয়াল, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট এম এ হাকিম হাওলাদার, পৌর মেয়র ও জেলা আ’লীগের সহ সভাপতি মো. হাবিবুর রহমান মালেক সহ জেলার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন।

পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় মিলনায়তনে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী এ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম এমপি।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহেদুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান, জেলা সিভিল সার্জন ডা. হাসনাত ইউসুফ জাকি, জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট এম এ হাকিম হাওলাদার। জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী রেবেকা খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনিরা পারভীন, জেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান ফুলু,​ সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক​ জিয়াউল আহসান গাজী, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক গৌতম রায় চৌধুরী, পৌর আ’লীগের সভাপতি সাদুল্লাহ লিটন। এসময় বিভিন্ন সরকারি দপ্তর প্রধান, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, সাংবাদিক ও অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৭ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন আয়োজনে বিজয়ীদের মাঝে সনদপত্র ও পুরস্কার বিতরণ করে পিরোজপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমী এবং যুব মহিলাদের যুব ঋণ হিসেবে ৮ জনকে ৫ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা প্রদান করে জেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর।

এসময় বক্তারা বলেন বঙ্গবন্ধুকে হত্যার কুশিলব ছিলেন জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধুর হত্যায় পরিকল্পনা ও ষড়যন্ত্রকারীদের বিচার আজও হয়নি। তারা আরও বলেন, এই বিচার যদি না হয় তাহলে ইতিহাসের কাঠগড়ায় আমাদের দাঁড়াতে হবে। শেখ হাসিনার আমলে বিচার না হলে আর কোনদিন হবে না। একসময় স্বাধীনতা বিরোধীদের রাষ্ট্রীয়ভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করা হতো এবং তাদেরকে হাইকমিশনে চাকরি দেয়া হতো। খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর খুনিদের প্রত্যেকটা পদক্ষেপে সহায়তা করেছেন। যারাই ক্ষমতার অপব্যবহার করেছে তারা আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। ২১বার হত্যার মুখোমুখী হয়েও শেখ হাসিনা আজও দেশের মানুষের কথা ভাবেন।

আরোও

আলোচিত সংবাদ

error: Content is protected !!