সোমবার, নভেম্বর ২৮, ২০২২

পাঁচদিন পর মাঠে গড়াবে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই

[print_link]

আর পাঁচদিন পর মাঠে গড়াবে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে প্রায় ১৫ দিন ব্যাট বলের যাদুতে মেতে থাকবে ক্রিকেট প্রেমীরা। এ আসরে সবচেয়ে সফল দল ভারত। এখন পর্যন্ত ৭টি শিরোপা তাদের দখলে।

আসরে সবচেয়ে বেশিবার অংশগ্রহণকারি দলের নাম শ্রীলঙ্কা।

১৯৮৪ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজায় বসেছিল এশিয়া কাপের প্রথম আসর। সেবার রাউন্ড রবিন লিগে অংশ নিয়েছিল ভারত, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। শেষ পর্যন্ত শিরোপা জেতে ভারতই।

১৯৮৬ সালের দ্বিতীয় পর্বের খেলার আয়োজক ছিল শ্রীলঙ্কা। এটা ছিল প্রথম কোন বহুজাতিক ক্রিকেট সিরিজ যা সে দেশে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ঝামেলায় ঝড়িয়ে সেই আসরে অংশ নেয়নি ভারত। তবে, বাংলাদেশ সেবার প্রথমবারের মতো অংশ নেয়। শিরোপা যায় স্বাগতিকদের ঘরেই।

বাংলাদেশ প্রথম বহুজাতিক টুর্নামেন্ট আয়োজন করে ১৯৮৮ সালে। সেটিই ছিল এশিয়া কাপ। সেই আসরে দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা ঘরে তোলে ভারত।

এর দুই বছর পর ভারতে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে অংশ নেয়নি পাকিস্তান। কলকাতার ইডেনের ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে পরাজিত করে টানা দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জেতে টিম ইন্ডিয়া। ৯৩ সালে ভারত পাকিস্তান দ্বন্দে আর মাঠে গড়ায়নি এশিয়া কাপ।

এরপর সময় যত গড়িয়েছে দলের সংখ্যাও বেড়েছে। ১৯৯৫ সালের পর থেকে দুই বছর পর পরই এশিয়া কাপ আয়োজন করছে এসিসি।

এখন পর্যন্ত মোট ১৪ আসরে ৭ শিরোপা জিতে সবার উপরে ভারত। তারপর রয়েছে শ্রীলঙ্কা। তাদের ক্যাবিনেটে শিরোপার সংখ্যা ৫টি। পাকিস্তান ২০০০ আর ২০১২ সালে দুইবার শিরোপা জিতেছে।

এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের নেই কোন শিরোপা। তবে, সাকিব, মুশফিকরা ফাইনাল খেলেছে তিনবার। খুব কাছে গিয়েও প্রতিবারই ফিরে আসতে হয়েছে।

আর ২০১৬ সালের পর দ্বিতীয়বারের মতো টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে মাঠে গড়াবে এশিয়া কাপ। ভেন্যু, যেখান থেকে এশিয়া কাপ শুরু হয়েছিল সেই আরব আমিরাতেই। এবারের আসর মাঠে গড়াবে ২৭ আগস্ট আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কার ম্যাচ দিয়ে।

আরোও

আলোচিত সংবাদ

error: Content is protected !!