সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২

জমি জমার জের ধরে সুদ কারবারীর তোপের মুখে অসহায় পরিবার

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌর এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের এক অসহায় নিঃস্ব পরিবার নিজ সম্পত্তি দখল নিতে গিয়ে তোপের মুখে পড়েছে। গত বুধবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে আড়ানী পৌরসভার জোতরঘু দশআনী পাড়া এলাকার রবীন্দ্রনাথ দোবে তার জমিতে বাড়ি করার উদ্দেশ্যে ইট রাখতে গেলে একই এলাকার আলতাফ হোসেন (৫০) ও তার ছেলে রুদ্র হোসেন (২৩) রবীন্দ্রনাথ দোবে কে মারপিট করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী রবীন্দ্রনাথ দোবের স্ত্রী বাদী হয়ে বাঘা থানায় মামলা দায়ের করেন।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, আলতাফ হোসেন একজন সুদ কারবারী। কয়েক বছর আগেও তার অর্থনৈতিক অবস্থা তেমন ভালো ছিলো না। তার তিনটি বাড়িসহ বর্তমানে তিনি অঢেল সম্পদ ও টাকা পয়সার মালিক। অল্প সময়ে সুদের কারবার করে সম্পদশালী বনে যান তিনি।অবৈধ এ অর্থের গরমে নাকি আলতাফ অসহায় মানুষের সাথে এমন আচরণ করেন। পূর্বে তার সুদ কারবারের খপ্পরে পড়ে এলাকার বহু মানুষ নিঃস্ব ও এলাকা ছাড়া হয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, গত আনুমানিক ৪-৫ বছর পূর্বে রবিন্দ্রনাথ দোবে তার নিজ বসত বাড়ী মেরামত করতে গেলে আলতাফ জানায় যে, সে গত ১০-১৫ বছর পূর্বে (রবিন্দ্রনাথ দোবের আপন ভাই) প্রণব দোবে (৭০) এর কাছ থেকে পৌনে ০৫ শতক মৌরসি জমি ক্রয় করেছে। উক্ত জমি ক্রয় বিক্রয়ের বিষয়ে রাবিন্দ্রনাথ দোবে ও তার পরিবারের অন্য কোন লোকজন জানত না। বসত বাড়ী বিক্রয় করে নাই বলে জানালেও আলতাফ কোন কর্ণপাত না করে তাদের বসত বাড়ী দখলের পায়তারা করিতে থাকে। ও-ই জায়গায় ঘর করতে হলে তাকে চাঁদা দিতে হবে বলে হুমকি প্রদান করে ।

পরবর্তীতে ঘর মেরামত করতে গেলে আলতাফ বাধা প্রদান করে। যার কারণে বসত বাড়ী মেরামত করতে না পেরে বিগত ৫ বছর আগে থেকে পার্শ্ববর্তী বাড়ীতে ভাড়াটিয়া হিসাবে বসবাস করতে থাকে রবীন্দ্রনাথ দোবে। তারা যতবারই ঘর বাড়ী মেরামত করতে যায় ততবারই উপরোক্ত আলতাফ ও তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা বাধা প্রদানসহ বিভিন্ন প্রকার হুমকি প্রদান করে। উপায়ন্তর না দেখে ভাড়া বাসায় বসবাস করিতে থাকে রবীন্দ্রনাথ দোবে ও রঞ্জু রাণী দোবে দম্পতি। আর্থিক অনটনের কারণে ভাড়া বাসায় বসবাস করতে কষ্টসাধ্য হওয়ায় গত বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে বাড়ীর নির্মান কাজ করার জন্য ইট রাখলে আলতাফ ও তার ছেলে অতর্কিত ভাবে তাদের হাতে থাকা লোহার রড ও লাঠি নিয়ে রবীন্দ্রনাথ দোবের উপর আক্রমন করে। মারপিটে রবীন্দ্রনাথ দোবের বাম হাতের কবজির উপর ভেঙ্গে যায় এবং শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছিলে যায় ও মারাত্মক জখম হয় বলে অভিযোগে উল্লেখ রয়েছে।

অভিযোগে আরও জানা যায়, রবীন্দ্রনাথ দোবেকে বাঁচাতে তার স্ত্রী এগিয়ে এলে কাপড় ধরে টানা-হেচড়া করে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়। মারপিটের এক পর্যায়ে রবীন্দ্রনাথ দোবের পকেটে থাকা নগদ ৫,৬০০/-টাকা চুরি করে নিয়ে নেয় আলতাফ। পরে স্থানীয়রা রবীন্দ্রনাথকে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। বর্তমানে তিনি বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

আমার এক ছেলে এবং দুই মেয়ে। আমার দুই মেয়ের বিবাহ হয়ে গেছে এবং ছেলে চাকুরি করে। আমার স্বামী শশুরের অনেক জমি ছিলো। কিন্তুু আজ আমরা নিঃস্ব, অসহায়। মাথা গোঁজার ঠাঁই টুকুও নেই। বৃদ্ধ বয়সে আমরা থাকি ভাড়া বাড়িতে। আমার স্বামীর মাত্র ৫শতক জমি অবশিষ্ট আছে। তাও আবার অর্থ লোভী, সুদে কারবারি আলতাফের দখলে। এ জমি দখল নিতে গেলে আমাদের হুমকি ধামকি ও অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে। এসব কথা বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়েন রবীন্দ্রনাথ দোবের স্ত্রী রঞ্জু রাণী দোবে।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে আলতাফ জানান, আমি জমি ক্রয় করেছি। এ-ই জমি নিয়ে রাজশাহী কোর্টে মামলা চলমান রয়েছে। ঘটনার দিন আমি কোর্টে ছিলাম। আমার জানা মতে মারধরের কোন ঘটনা ঘটেনি। তাছাড়া জমিতে ইট রাখার কথা শুনে তাদের বলেছি যেহেতু মামলা চলছে এখনও রায় হয়নি। সেহেতু এখন এই জমিতে ঘর করতে পারবেন না। আদালতের রায়ে যদি আপনি পান তবে ঘর নির্মাণে আমার কোন আপত্তি থাকবে না।

আড়ানী পৌর মেয়র মুক্তার আলী বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের জমি জোরপূর্বক লিখে নেওয়াসহ সুদের টাকার গরমে মানুষের প্রতি জুলুম, অত্যাচর, নির্যাতন করে আলতাফ। এর প্রতিকার হওয়া দরকার।

এ বিষয়ে বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ সাজ্জাদ হোসেন জানান, ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত
সাপেক্ষে মামলা নেওয়া হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরোও

আলোচিত সংবাদ