শনিবার, জানুয়ারি ২৮, ২০২৩

ভিন্ন নামে এলেও নিবন্ধন পাবে না জামায়াত: ইসি সচিব

[print_link]

নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর বলেছেন, ভিন্ন নামে এলেও নিবন্ধন পাবে না জামায়াত। আগামী সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসাবে কাজ করবে বলেও জানান তিনি। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সোমবার (২৯ আগস্ট) নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন আদালতের আদেশে বাতিল হয়েছে।

তাই ওই দলের ব্যক্তিরা ভিন্ন নামে আবেদন করলেও নিবন্ধন পাওয়ার সুযোগ নেই। অবশ্য আদালত কোনও আদেশ দিলে ভিন্ন কথা। সে আদেশ মানতে হবে। ’

যদি একই মানুষ নতুন করে আবেদন করে, কিন্তু ভিন্ন দল, তাহলে সুযোগ আছে কিনা- এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘একই মানুষ আসবে কিনা, তা তো আর বলতে পারবো না। যারা আবেদন করছেন, যদি দেখি যে ক্রাইটেরিয়া মেলে না, তাহলে তো দিতে পারবো না। ’

২০০৮ সালের ৪ নভেম্বর জামায়াতে ইসলামীকে নিবন্ধন দেওয়া হয়েছিল। দলটির নিবন্ধন নম্বর ছিল ১৪। উচ্চ আদালতে এক রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৩ সালের ১ আগস্ট জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল ও অবৈধ ঘোষণা করা হয়। পরে ২৯ অক্টোবর ২০১৮ সালে গেজেট হয়।

পৃথক এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আগামী সংসদ নির্বাচনে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোতায়েন করা হবে। সহিংস পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে ডাকলে তারা কেন্দ্রে যাবে। ভোটে কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা হলে প্রিজাইডিং কর্মকর্তা শুরুতে পুলিশ ও র‌্যাবের সহযোগিতা নেবে, তারা সামাল দিতে না পারলে সেনাবাহিনীর সাহায্য পাবে।

আরোও

আলোচিত সংবাদ

error: Content is protected !!