বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৪, ২০২২

রোনালদো ভুগছেন অবসাদে, দ্বারস্থ মনোবিদের

[print_link]

ক্যারিয়ারে এরকম সময়ের মধ্যে দিয়ে আগে কখনও যেতে হয়নি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। নিজের ঘর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে রীতিমতো ব্রাত্য তিনি। সুযোগ পেয়ে কাজে লাগাতে পারছেন না বলেই রেড ডেভিলসদের বেঞ্চ গরম করতে হচ্ছে তাকে।

অধিনায়ক হিসেবে পর্তুগালের প্রথম একাদশেই থাকছেন রোনালদো।

তবে সেখানেও ব্যর্থ তিনি। উয়েফা নেশনস লিগের সেমিফাইনালে পর্তুগালের উঠতে না পারার ব্যর্থতার দায় সবচেয়ে বেশি রোনালদোকেই নিতে হচ্ছে। মাঠে একের পর এক বিবর্ণ পারফরম্যান্সেই সমালোচনার তীরে ক্ষত-বিক্ষত রোনালদো।

শুধু মাঠে নয়, মাঠের বাইরের নানা কারণে সময়টা খুব বাজে যাচ্ছে রোনালদোর। কয়েক মাস আগে পুড়েছেন সন্তান হারানোর বেদনায়। মানসিকভাবে যাকে ফুটবল বিশ্বের অন্যতম সেরা ধরা হতো, সেই রোনালদোই এখন তাই ভুগছেন মনস্তাত্ত্বিক সমস্যায়।

বিষয়টি অবশ্য জানাজানি হতো না, যদি জর্ডান পিটারসন তা ফাঁস না করতেন। পিটারসেন একজন ইন্টারনেট সেলিব্রিটি। সঙ্গে পেশাদার মনোবিদও। প্রায় সপ্তাহ দুয়েক আগে পিটারসেনের সঙ্গে তোলা একটি ছবি ইনস্টাগ্রামে দেন রোনালদো। সেখানে বিস্তারিত কিছু না জানালেও রোনালদো ক্যাপশন দিয়েছিলেন, ‘তোমার সঙ্গে দেখা হয়ে ভালো লাগল। ’

পরে ইংল্যান্ডের টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব পিয়ার্স মরগাননের শোতে এসে রোনালদোর সঙ্গে সাক্ষাৎ নিয়ে সবকিছু খোলাসা করেন পিটারসেন। তিনি জানান, রোনালদো তার কাছ থেকে থেরাপি নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘সে আমাকে তার সঙ্গে দেখা করার জন্য আমন্ত্রণ জানায়। কয়েক মাস আগে সে নিজের জীবনে কিছু সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল, তখন তার এক বন্ধু তাকে আমার কিছু ভিডিও পাঠায়। সে জানায়, সেসব ভিডিও সে দেখেছে এবং আমার একটি বইও সে পড়েছে। এগুলো তাকে উপকৃত করেছে। সে তখন আমার সঙ্গে কথা বলার ইচ্ছা পোষণ করে। ’

তাদের মধ্যে কী কথা হয়েছে, তা জানাতে গিয়ে পিটারসন বলেছেন, ‘এরপর আমি তার বাসায় যাই এবং তার সঙ্গে প্রায় দুই ঘণ্টা কথা হয়। ঠিকঠাক থাকার জন্য তার কাছে যা যা আছে, সব সে আমাকে দেখায়। আমাদের বেশির ভাগ কথাবার্তা হয়েছে ভবিষ্যতে সে কী চায়, তা নিয়ে এবং যে সমস্যাগুলোর মুখোমুখি সে হচ্ছে, সেসব নিয়ে। ’

মরগানের শোতে পিটারসনের এসব কথাই বলে দিচ্ছে, মাঠ ও মাঠের বাইরের খারাপ সময়টা কাটাতে তার দ্বারস্থ হয়েছেন রোনালদো।

আরোও

আলোচিত সংবাদ

error: Content is protected !!