সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২
Home Blog

সিরাজদিখানে মায়ের সাথে অভিমান করে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

সিরাজদিখান(মুন্সীগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে মায়ের সাথে অভিমান করে ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। সোমবার দুপুর ১টার দিকে ওই ছাত্রীর বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের নাম মহিমা আক্তার(১৩)। সে উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের চম্পকদি গ্রামের সেলিম শেখের মেয়ে এবং চম্পকদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী।

নিহতের চালা শাজাহান শেখ বলেন, পড়াশুনার ব্যাপারে শাসন করায় মায়ের সাথে অভিমান করে গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় ঘরে থাকা ইদুর মারার ঔষধ খায় মহিমা। পরে তাকে সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। রাতে ওয়াশ করার পর সে কিছুটা সুস্থ ছিল। আজকে সকাল ১০টার দিকে হাসপাতালে মারা যায়। সেখান থেকে আমরা মহিমার লাশ বাড়িতে নিয়ে যাই।

সিরাজদিখান ওসি একেএম মিজানুল হক বলেন, মহিমা নামে ১৩ বছরের এক কিশোরী বিষ খেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। আজকে সকালে তার মৃত্যু হলে তার পরিবার তাকে বাড়িতে নিয়ে যায়। জৈনসার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম আমাকে মুঠোফোনে বিষয়টি জানালে আমি অফিসার পাঠিয়ে লাশের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। এ বিষয়ে আইনত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ।

সিরাজদিখান উপজেলা কমপ্লেক্সের ওয়ার্ডে কিশোরী রোগী ধর্ষণ, আটক-১

সিরাজদিখান মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসাধীন ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে । গেলো শুক্রবার ও শনিবার দিবাগত রাতে হাসপাতালের ১৩ নাম্বার ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা রোগীর সাথে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কিশোরী মা আজ রবিবার দুপুরে সিরাজদিখান থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওয়ার্ড বয় রাজিব (২৪) কে আটক করেছে পুলিশ।

সিরাজদিখান থানার ওসি মিজানুল হক জানান, সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন এক কিশোরীর অভিযোগ, গতকাল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চুক্তিভিত্তিক ওয়ার্ড বয় ময়মনসিংহের কমলাপুরের ফজলুল হকের ছেলে মো. রাজিব মিয়া (২৪) স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি কেবিনে নিয়ে অচেতন অবস্থায় তাকে ধর্ষণ করে। ১৫ বছর বয়সী ঐ কিশোরী গত ২২সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন।

ভুক্তভোগী কিশোরীর মা অভিযোগ করে বলেন, মহিলা ওয়ার্ডের ৩ নং বেডে ভর্তি থাকা এক মহিলা রোগী আমাকে ঘটনাটি জানায়। সে ১ মাস যাবৎ সেখানে ভর্তি ছিলো৷ আমার মেয়ে ছিলো ১৩ নং বেডে। আমার মেয়েকে ওয়ার্ডবয় রাজিব ১ নং কেবিনে নিয়ে ধর্ষণ করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আঞ্জুমান আরা জানান, ভুক্তভোগী নারীর মায়ের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে পুলিশকে জানানো হলে পুলিশ অভিযুক্ত ওয়ার্ড বয়কে আটক করে নিয়ে যায়। ভুক্তভোগী কিশোরীকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

মসজিদের আয় ব্যয়ের হিসাব নিয়ে দ্বন্দ্ব, অভিযোগ গড়াল ইউএনও পর্যন্ত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি, ২৬ সেপ্টেম্বর

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার তালেবপুর ইউনিয়নের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের আয়-ব্যয়ের হিসাব নিয়ে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে। মসজিদ কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির খানের বিরুদ্ধে আয়-ব্যয়ের হিসাব নিয়ে অভিযোগ করা হয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে। তবে, সাধারণ সম্পাদক যথারীতি অডিট কমিটি ও তদন্ত কর্মকর্তার কাছে হিসেব বুঝিয়ে দিলেও সভাপতির কাছে থাকা গচ্ছিত টাকার হিসেব এখনো পায়নি কেউ।

জানা গেছে, চলতি বছরের ২১ জুলাই স্থানীয় ইউপি সদস্য বাদল খান ১৭ জন গ্রামবাসীর পক্ষে মসজিদের আয়-ব্যয়ের হিসাব ও নতুন কমিটি গঠন প্রসঙ্গে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দেন। তিনি অভিযোগ করেন মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির খান নিজের ইচ্ছামত লোকজন নিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তিদের কাছ থেকে অনুদান সংগ্রহ করে মসজিদের ভবন নির্মান করেছেন। তিনি নির্মাণ কাজের হিসাব দিতে গড়িমসি করেন। তাই সঠিক হিসাব ও নতুন কমিটি গঠনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত দেওয়ার পর তদন্তকালীন সময়ের মধ্যেই বাদল খানকে আহবায়ক ও মো: শেরশাহ খানকে সদস্য সচিব করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

পূর্বের কমিটির সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন কবির খান বলেন, আমাকে হেয় করার জন্যই এই অভিযোগ দেয়া হয়েছে। আমি দিন রাত পরিশ্রম করে মসজিদের নির্মান কাজ করিয়েছি। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দেয়া হয় চলতি বছরের ২১ জুলাই। মসজিদের নির্মাণ কাজ সায়মিকভাবে সমাপ্ত হওয়ায় এর আয়-ব্যয়ের জন্য মসজিদ কমিটির সহ-সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত সভাপতি) মো: রেজাউর রহমান খানকে প্রধান করে এর আগে ৫ মে তারিখে ৫ সদস্যর একট্ অডিট কমিটি গঠন করা হয়। আমি সেই কমিটির কাছে সমস্ত হিসাব বুঝিয়ে দেই।

তিনি আরো বলেন, ২০১৫ সাল থেকে ২০২২ সাল পর‌্যন্ত আমাদের আয় হয় ৩১ লাখ ৯৫ হাজার ৩৪০ টাকা। এর মধ্যে আমার কাছে ছিল ২৮ লাখ ৫৪ হাজার ৮৪০ টাকা। অবশিষ্ট ৩ লাখ ৪০ হাজার ৫শ টাকা সভাপতি মো: দেলোয়ার হোসেনের নিকট জমা ছিল। নির্মাণ কাজে আমার মাধ্যমে ব্যয় হয় ২৯ লাখ ১৪ হাজার ৭৫৪ টাকা। এতে করে আমার পকেট থেকে অতিরিক্ত ৫৯, ৯১৪ টাকা খরচ হয়েছে।

তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগের পর ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তার কাছেও আমি হিসাব বুঝিয়ে দিয়েছি। সেই সাথে হিসাবের কাগজটি মসজিদের ভেতরেও সাটিয়ে দেয়া হয়েছে, যাতে করে সবাই হিসাব দেখতে পারে।

অডিট কমিটির আহবায়ক মো: রেজাউর রহমান খান জানান, সাধারণ সম্পাদক তার আয় ব্যয়ের হিসাব আমাদের কাছে বুঝিয়ে দিয়েছেন। সভাপতির কাছে থাকা ৩ লাখ ৪০ হাজার ৫শ টাকার হিসাব আমরা আজ অব্দি পাইনি। তিনি এখনো আমাদের কাছে কোন হিসাব দেননি।

এব্যাপারে সাবেক সভাপতি মো: দেলোয়ার হোসেন খান জানান, আমার কাছে থাকা ৩ লাখ ৪০ হাজার ৫শ টাকা আমি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম মহিদুরের নিকট নির্মান কাজে খরচ করার জন্য দিয়েছি। তিনি ওই টাকা মসজিদের নির্মাণ কাজে খরচ করেছেন। দ্রুতই তার খরচের টাকার হিসাব দেয়া হবে।

বর্তমান কমিটির আহবায়ক ইউপি সদস্য বাদল খান জানান, মসজিদের আয় ব্যয়ের হিসাব ও নতুন কমিটি করার জন্য আমি অভিযোগ দিয়েছিলাম। আমরা অল্প সময়ের মধ্যে পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করবো।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সিংগাইরের ফিল্ড অফিসার মো: আকবর আলী বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমি তদন্ত করেছি। কমিটির সাধারণ সম্পাদক তার আয়-ব্যয়ের হিসাব আমাকে বুঝিয়ে দিয়েছেন। তবে, সভাপতির কাছে থাকা টাকার হিসেব আমি পাইনি।

এব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিপন দেবনাথ বলেন, কোন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নিয়েই দ্বন্দ্বে জড়ানো উচিত নয়। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে সকল দ্বন্দ্বের অবসান ঘটিয়ে আল্লাহ ঘরে শান্তি ফিরবে এমনটাই প্রত্যাশা স্থানীয় মুসল্লীদের।

প্রতিবেশীদের হামলায় একাধিক ফলজ গাছ ধ্বংস !

আরিফুল ইসলাম,লালমনিরহাট
লালমনিরহাটে  পূর্ব শত্রুতার জেরে মন্তাজ আলীর (৬০) বাড়ির আঙিনার ৩ টি ফলজ গাছ কেটে ফেলেছেন দূবৃত্তরা। শনিবার ২৪ শে অক্টেবর সন্ধায় সদর উপজেলার হারাটী ইউনিয়নের কাজীর চওড়ায় এই ঘটনাটি ঘটেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বহুদিন যাবত মন্তাজ আলীর সাথে প্রতিবেশী রাজু হোসেন ( ২৬) মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। তারই জের ধরে শনিবার গাছ কেটে ফেলার ঘটনাটি ঘটে। ভুক্তভোগীরা জানান, গত ২৪ সেপ্টেম্বর সন্ধার সময় বসত বাড়ীর সামনে বাধা একটি লাল গরু জোড় করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে অভিযুক্ত রাজু মিয়া।তখন মন্তাজ আলীর স্ত্রী মর্জিনা বাধা দিলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও হুমকি প্রর্দশন করে। পরবর্তীতে রাজু সহ আর তিন চারজন এসে মন্তাজ আলীর উঠানের সামনে তিনটি ফলজ গাছ কুঠার দিয়ে কেটে ফেলেন। এসময় মন্তাজ আলীর মেয়ে মানসুরা বেগম (২৬) মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারন করলে তাকেও হুমকি দেয় রাজু। এরপর উক্ত ঘটনার প্রতিকার চেয়ে সদর থানায় চারজনের নামে একটি অভিযোগ দায়ের করে মন্তাজ আলী।
এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল আলম জানান, ঘটনাটি শুনেছি, প্রাথমিক ভাবে একজন অফিসার গিয়েছে।প্রয়োজনে আবারও অফিসার পাঠিয়ে তদন্ত সাপেক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী সভা ও সদস্য সংগ্রহ অভিযান

মোঃ রাসেল হোসেন দৌলতপুর প্রতিনিধিঃ
মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলায় ২৫সেপ্টেম্বর দৌলতপুর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে বাংলাদেশ আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনা মোতাবেক কর্মী সভা ও সদস্য সংগ্রহ অভিযানে প্রধান অতিথি ছিলেন মানিকগঞ্জ -১আসনের সংসদ সংদস‍্য এ এম নাঈমুর রহমান দূর্জয়। বাংলাদেশ সেচ্ছাসেবক লীগের উপ-স্বাস্থ‍্য বিষয়ক সম্পাদক ড:জয় হাজরার সভাপতিত্বে সদস্য সংগ্রহ হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সেচ্ছাসেবক লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য মো:হারুন উর রশীদ সদস্য সংগ্রহ অনুষ্ঠানে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম রাজা,থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কদ্দুস,উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মু:মাহবুবুল হক খান সুমন প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে সার্বিক দিক নির্দেশনায় ছিলেন জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার।
এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন থানা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মো:শওকত আলী,
থানা যুবলীগের আহবায়ক হুমায়ন কবির শাওন, জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ আব্বাস আকাশ, থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো:আতোয়ার রহমান,সেচ্ছাসেক লীগ নেতা নিজামুল ইসলাম তুষার ও ফারুক হোসেন প্রমুখ।
সদস‍্য সংগ্রহ অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন আমাদের সরকার দেশে যখনি ক্ষমতায় আসে দেশে ব‍্যাপক উন্নয়ন হয়।তাই আমার সরকার উন্নয়নের সরকার ।সরকারের বিপক্ষে কেউ কথা বললে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না।তাই আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়জুক্ত করার জন্যে অনুরোধ করেন বক্তারা